Poetry

কবি নই। তবে হবার বাসনা বালকবেলায় ছিলোনা তা নয়। কিন্ত সে সব স্বপ্ন বিলাসী বালকের কিছু বিলাসী কল্পনার কোন ক্ষুদ্র টুকরোর ব্যাতিত বেশি কিছু নয়। তবে ব্যাকরণহীন জীবনের প্রবাহে যা লিখতে ইচ্ছে করে লিখি। যেভাবে লিখতে ইচ্ছে হয় লিখি। কিছু লেখা কবিতার মত মনে হয়, কিছু হয় না। কবিতা হওয়া লেখা বা কবিতার মতো লেখা গুলোকে কবিতা করে তোলার সংগ্রাম করতে আত্মিক ভাবে নিরুৎসাহী । কারণ, ধৈর্যের অভাব অথবা খামখেয়ালী। তারপরেও লিখতে ভালোলাগে বলে লিখি। আপন কথা আপন করে নিজেকে বলতে চাই বলেই লিখি।

১.

 নিজেকে দেবতার মতোই মিথ্যা মনে হয়
যেখানে অতীত হলো না ঘটা অতীতের কিংবদন্তি গল্প।

২.

তুমি আমাকে গুলি করার আগে দেখবে বুলেট গুলো নেই। চুরি গেছে। একদল দিগম্বর পথশিশু রাস্তার ধারে এক্কা দোক্কা খেলছে বুলেট গুলো চাড়া বানিয়ে।

৩.

I am the darkness before your death.

 

৪.

স্বর্ণ রোদ তোমার সোনালি কিরণে মেখে রাখো আমায়।
প্রেমিকার সিক্ত ঠোটের আহবান প্রত্যাখ্যান করে রুক্ষ মরুকে নিচ্ছি আপন করে।
মায়াহীন বর্বরতায় ঘৃণা করি তোমাদের সভ্যতাকে।
আমি সত্য এবং অবিনশ্বর।

 

৫.

ক.
তোমার চোখে তাকিয়ে আজ শুধু ঘৃণার আগুন দেখি।
মাতাল ঘোলাটে চোখে অবুঝ হিংস্রতা।

খ.
তারপর ঘৃণা গুলো নিঃস্ব হয়ে ছায়াপথের দিকে উড়ে যাবে ক্যাম্প ফায়ারের জ্বলন্ত ছাইয়ের মতো করে।
উড়ন্ত ঘৃণা আমি দেখবো নিভে যেতে।
আবার।
পরম মমতায়।

গ.
তুমি ঈশ্বরী,
ঈশ্বরের ছবি আঁকা হবে তোমার ক্যানভাসে।
আরেকটি বার।

Advertisements